বিপরীত শব্দ

কটি শব্দের বিপরীত অর্থবাচক শব্দকে বিপরীতার্থক শব্দ বা বিপরীত শব্দ বলে ।

 

  • সাধারণত শব্দের শুরুতে অ, অন, অনা, অপ, অব, দূর, ন, না, নি, নির প্রভৃতি উপসর্গগুলো যুক্ত করলে শব্দের অর্থ না-বাচক বা নিষেধবোধক অর্থে রূপান্তরিত হয় । তাই শব্দের বিপরীত শব্দ তৈরিতেও এই উপসর্গগুলো ব্যবহৃত হতে দেখা যায় ।

যেমন- আগত  শব্দটির শুরুতে অন- উপসর্গটি যুক্ত হয়ে বিপরীত শব্দ হল- অনাগত ।

 

  • আবার যে সব শব্দের শুরুতে হ্যাঁ-বোধক উপসর্গ থাকে, তাদের শুরুর সেই উপসর্গের বদলে না-বোধক উপসর্গও ব্যবহৃত হতে দেখা যায় ।

যেমন- অনুরাগ- শব্দটি রাগ- শব্দমূলের পূর্বে অনু- উপসর্গ যুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে, যেখানে অনু- উপসর্গটি ইতিবাচক অর্থ প্রকাশ করেছে । এখন অনু-র পরিবর্তে বি- উপসর্গ ব্যবহার করলে, বিরাগ- শব্দে বি-উপসর্গটি নেতিবাচক অর্থ প্রকাশ করে, এবং শব্দটির অর্থ সম্পূর্ণ উল্টে যায় । অর্থাৎ, ইতিবাচক অনু- উপসর্গের বদলে নেতিবাচক বি-উপসর্গের ব্যবহারে বিপরীত শব্দ গঠিত হল ।

 

  • তবে সাধারণত, শব্দের বিপরীত শব্দগুলো অর্থের দিক থেকে বিপরীত অর্থবোধক হয়; না-বোধক বা নেতিবাচক হয় না । তাই, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এরকম কোন নিয়ম খাটে না । বরং অর্থের দিক থেকে যথাযথ বিপরীত শব্দটিই গৃহীত হয় ।

যেমন- আজ  কাল, অতীত- ভবিষ্যত, অধম- উত্তম, ইত্যাদি ।

 

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিপরীত শব্দ

 

অকর্মক

সকর্মক

অজ্ঞ

প্রাজ্ঞ

অধিত্যকা

উপত্যকা

অক্ষম

সক্ষম

অতিকায়

ক্ষুদ্রকায়

অনন্ত

সান্ত

অগ্র

পশ্চাৎ

অতিবৃষ্টি

অনাবৃষ্টি

অনুকূল

প্রতিকূল

অগ্রজ

অনুজ

অতীত

ভবিষ্যত

অনুগ্রহ

নিগ্রহ

অণু

বৃহৎ

অদ্য

কল্য

অগ্রজ

অনুজ

অচল

সচল

অধঃ

ঊর্ধ্ব

অনুরক্ত

বিরক্ত

অচলায়তন

সচলায়তন

অধম

উত্তম

অনুরাগ

বিরাগ

অচেতন

সচেতন

অধমর্ণ

উত্তমর্ণ

অনুলোম

প্রতিলোম

অলীক

সত্য

অশন

অনশন

অস্তগামী

উদীয়মান

অল্পপ্রাণ

মহাপ্রাণ

অসীম

সসীম

অস্তি

নাস্তি/নেতি

অহিংস

সহিংস